এ জুলুস প্রিয়নবীর প্রতি গভীর ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ, মুসলিম ঐক্যের প্রতীক- পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)

এ জুলুস প্রিয়নবীর প্রতি গভীর ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ, মুসলিম ঐক্যের প্রতীক- পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)

এ জুলুস প্রিয়নবীর প্রতি গভীর ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ, মুসলিম ঐক্যের প্রতীক- পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)

আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র ব্যবস্থাপনায় আওলাদে রাসূল, রাহ্নুমায়ে শরীয়ত ও তরীক্বত, মুর্শিদে বরহক্ব, হাদীয়ে দ্বীন ও মিল্লfত, হযরতুলহাজ্ব আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ (মা.জি. আ.)’র সদারতে, আওলাদে রাসূল, হযরতুলহাজ¦ আল্লামা পীর সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.) ও সাহেবজাদা আওলাদে রাসূল, আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ্ (মাঃজিঃআঃ)’র অংশগ্রহণে ১২ রবিউল আউয়াল, ৯ অক্টোবর অনুষ্ঠিত জশনে জুলসে ঈদে মিলাদুন্নবী নগরীর মুরাদপুর, চকবাজার, চট্টগ্রাম কলেজ, গণি বেকারী, কাজির দেউরি, ওয়াসা হয়ে জিইসি মোড়, ২ নং গেইট প্রদক্ষিণ শেষে জামেয়া জুলুস ময়দানে মাহফিলে মিলিত হন। লক্ষ লক্ষ মানুষ কালেমা, সালাতু সালাম লিখিত পোস্টার, পেস্টুন, ব্যানার হাতে নিয়ে হামদ, নাত, গজল, নারায়ে তাকবির, নারায়ে রিসালাত, নারায়ে গাউসিয়া স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম।
জুলুস শেষে আয়োজিত মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.) বলেন, বিশ্ব মানবতার মুক্তিদূত রাহমাতুল্লিল আলামিন হজরত মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম-এর শুভাগন বিশ্ববাসীর জন্য সবচেয়ে বড় নে’মাত, আল্লাহর পক্ষ থেকে বড় অনুগ্রহ। মহান আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী এ রহমত ও অনুগ্রহ প্রাপ্তিতে মহান আল্লাহর শোকরিয়া আদায় ও খুশী উদযাপন করতে হবে। এ খুশী উদযাপনের উত্তম পন্থা জশনে জুলুসে ঈদে মিলাদুন্নবী। যা ১৯৭৪ সালে গাউসে জমান আল্লামা হাফেজ ক্বারী সৈয়দ মুহাম্মদ তৈয়্যব শাহ রাহমাতুল্লাহি আলাইহির নির্দেশক্রমে আনজুমান এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট শুরু করেছে। আল্লামা তৈয়্যব শাহ (রা.) এ এ জুলুসে সদারত দিয়েছেন এরপর বর্তমান হুজুর কিবলা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ তাহের শাহ (ম.জি.আ.)’র সময়ে এ জুলুসের ব্যাপ্তি ঘটেছে। লাখো লাখো মানুষ জুলুসে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি আরো বলেন, প্রিয়নবী এ জুলুস রাহমাতুল্লিল আলামিনের প্রতি গভীর ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ-মুসলিম ঐক্যের প্রতীক। উম্মতে মুহাম্মদীর উপর কর্তব্য হচ্ছে হুজুর পাককে নিজের জান-মালের চেয়ে বেশি মুহাব্বত করা। আজকের এ জশ্নে জুলুসে বাংলার আপামর জনগণ দেখিয়ে দিয়েছেন নবীজির প্রতি তাদের মুহাব্বত। বানিয়ে জমেয়া আল্লামা সৈয়্যদ আহমদ শাহ সিরিকোটি (রা.) নবীজির মুহাব্বত ও ভালোবাসাকে উম্মতে মুহম্মদির অন্তরে জাগ্রত করতে চৌহর শরীফ হয়ে সিরিকোট, আফ্রিকা, রেঙ্গুন এরপর বাংলার জমিনে তশরিফ এনেছেন। এখানে এসে মুহাব্বতের বীজ বপন করেছেন আনজুমান ও জামেয়া প্রতিষ্ঠা করে। আর আল্লামা হাফেজ ক্বারী সৈয়দ মুহাম্মদ তৈয়্যব শাহ (রা.) জশনে জুলুস ও গাউসিয়া কমিটি প্রতিষ্ঠা করে রাহমাতুল্লিল আলামিনের ইশক্ ও মুহাব্বত এবং নবীজির মানবতার বাণী দিগদিগন্তে ছড়িয়ে দিয়েছেন। বর্তমানে দাওয়াতে খায়ের কর্মসুচি উম্মতে মুহাম্মদিকে আমালিয়াতের সঠিক নির্দেশনা দেয়ার জন্য প্রবর্তন করা হয়েছে। গাউসিয়া কমিটি করোনাকালে মানবতার যে সেবা করেছে তা আজ বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। আওলাদে রাসুল রাহনুমায়ে শরিয়ত ও তরিকত মুর্শিদে বরহক আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ তাহের শাহ (ম.জি.আ.)’র সভাপতিত্বে আয়োজিত জশনে জুলুস ও মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন শাহজাদা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ কাশেম শাহ (ম.জি.আ.), চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. রেজাউল করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ মুসলিম উদ্দিন এম.পি, পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মিজানুর রহমান, এটিএম পিয়ারুল ইসলাম।
বক্তব্য রাখেন আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহসিন ও সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। আনজুমান ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মহসিন তাঁর বক্তব্যে- বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রীয়ভাবে পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপনের ঘোষণা দেওয়ায় আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পবিত্র জশ্নে জুলুস আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, সিডিএ, ওয়াসা, বিদ্যুৎ, পুলিশ প্রশাসন, এন.এস.আই, প্রিন্ট ও ইলেকট্রোনিক্স মিডিয়াসহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞা জ্ঞাপন করেন। আনজুমান ট্রাস্ট’র সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আেেনায়ার হোসেন তাঁর বক্তব্যে বলেন, আজ ১২ রবিউল আউয়াল প্রিয়নবী রহমাতুল্লিল আলামীন হিসেবে এ ধরায় শুভাগমন করেন। তাঁর আগমন দিবসে খুশি উদযাপন ও আল্লাহ তা‘আলার সর্বশ্রেষ্ঠ নিয়ামত প্রাপ্তিতে শোকরিয়া আদায়ের নিমিত্তে এ পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম’র আজকের এ আয়োজন। পবিত্র জশ্নে জুলুসে অংশগ্রহণ করে জুলুসকে সাফল্যমন্ডিত করায় তিনি সকলকে আন্তরিক মোবারকবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বিশ্বের সর্ববৃহৎ জশ্নে জুলুস হিসেবে স¦ীকৃত এ (জুলুস) ধর্মীয় র‌্যালীকে ওয়ার্ল্ড গ্রীনিজ বুকে রেকর্ডের দাবী জানান।
এতে উপস্থিত ছিলেন আনজুমান ট্রাস্ট’র ভাইস প্রেসিডেন্ট এ. কিউ. আই চৌধুরী, এডিশনাল জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মোহাম্মদ সামশুদ্দিন, জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মোহাম্মদ সিরাজুল হক, এসিসট্যান্ট জেনারেল সেক্রেটারি এস.এম. গিয়াস উদ্দিন শাকের, ফাইন্যান্স সেক্রেটারি আলহাজ্ব মোহাম্মদ এনামুল হক বাচ্চু, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম, গাউসিয়া কমিটি বাংলদেশ’র চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যন আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ারুল হক, মহাসচির মুহাম্মদ সাহাজাদ ইবনে দিদার, চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আলহাজ¦ তছকির আহমদ, দক্ষিণ জেলার সভাপতি মোহাম্মদ কমরুদ্দিন সবুর, আনজুমান সদস্য মোহাম্মদ তৈয়বুর রহমান, লোকমান হাকিম মোহাম্মদ ইব্রাহীম, শেখ নাছির উদ্দিন আহমদ, মোহাম্মদ আবদুল হামিদ, নূর মোহাম্মদ কন্ট্রাক্টর, মুহাম্মদ আবদুল হাই মাসুম, মোহাম্মদ হাসানুর রশীদ রিপন, গাউসিয়া কমিটি কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এড.মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহ, এড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, মাস্টার মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ প্রমুখ। মাওলানা হাফেজ মুহাম্মদ আনিসুজ্জমান ও মাওলানা মুহাম্মদ আবুল হাশেম এর সঞ্চালনায় জশ্নে জুলুস মাহফিলে সম্মানিত ওলামায়ে কেরাম বিভিন্ন বিষয়ের উপর বক্তব্য পেশ করেন- জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, আনজুমান রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক আল্লামা মুহাম্মদ আবদুল মান্নান, আল্লামা কাযী মোহাম্মদ মঈন উদ্দীন আশরাফী, আল্লামা মুফতি কাযী মুহাম্মদ আবদুল ওয়াজেদ, হাফেয আল্লামা মুহাম্মদ সোলাইমান আনসারী, হাফেয আল্লামা মুহাম্মদ আশরাফুজ্জামান আলক্বাদেরী, অধ্যক্ষ আল্লামা বদিউল আলম রিজভি, অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ, অধ্যক্ষ হাফেয কাযী মুহাম্মদ আবদুল আলীম রেজভী, উপাধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কাশেম মুহাম্মদ ফজলুল হক, অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবু তৈয়্যব চৌধুরী ও অধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কালাম আমিরী, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান আলকাদেরী, মাওলানা আহমদুল্লাহ ফোরকান খান কাদেরী প্রমুখ। হুজুর কেবলা আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ (মাঃজিঃআঃ) বাংলাদেশসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি কামনা করে দো’আ ও মুনাজাত করেন।

নানুপুরে রাহমাতুল্লিল আলামিন কনফারেন্সে আল্লামা তাহের শাহ (ম.জি.আ)
আত্মশুদ্ধির একমাত্র পথ আল্লাহর ইবাদত ও রাসুলের পূর্ণ অনুসরণ
রাহনুমায়ে শরিয়ত ও তরিকত, মুরশেদে বরহক, আওলাদে রাসুল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ (মা:জি:আ:) বলেন, আমাদের শরীর ও রুহ অতি অল্প সময়ের জন্য একত্রিত হয়েছে। এ শরীরে যতক্ষণ রুহ আছে ততক্ষণ আল্লাহর ইবাদত করা সম্ভব। এ দুনিয়া হচ্ছে পরকালীন অনন্ত জীবনের প্রস্তুতির ক্ষেত্র। সুতরাং জীবনকে অবহেলায় নষ্ট না করে আত্মশুদ্ধি অর্জনের জন্য আল্লাহ ও রাসুল (দ:)’র পথে-মতে চলতে মনোযোগী হতে হবে। তিনি সিলসিলায়ে কাদেরীয়ায় নবাগতদের পাঁঁচওয়াক্ত নামাজের প্রতি একাগ্রতা ও ওয়াজিফা আদায়ের উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন মানুষের কল্যাণে ব্রতী হয়ে বাতিল ফেরকা থেকে নিজেকে রক্ষা করে জামেয়া-আনজুমান-গাউসিয়া কমিটিসহ মাজহাব মিল্লাতের খেদমতে নিবেদিত থাকার আহ্বান জানান। গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ফটিকছড়ি উপজেলা দক্ষিণ ও নানুপুর ইউনিয়ন শাখার যৌথ উদ্যোগে নানুপুর আবু সোবহান উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে আয়োজিত রাহমাতুল্লিল আলামিন সুন্নী কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হুজুর কিবলা উপস্থিত মুসল্লীদের কাদেরিয়া তরিকায় বায়াত করার পর সংক্ষিপ্ত নসিহতকালে উপরোক্ত আহ্বান জানান।
এফ. এ. ইসলামিক মিশন কমপ্লেক্স এর প্রতিষ্ঠাতা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কনফারেন্সে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওলাদে রাসুল সাহিবজাদা আল্লামা কাশেম শাহ (ম.জি.আ.)। অতিথি ছিলেন আন্জুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ সিরাজুল হক, আন্জুমানের ফাইনেন্স সেক্রেটারি মুহাম্মদ এনামুল হক বাচ্চু, কনফারেন্সে তকরির পেশ করেন শাইখুল হাদিস আল্লামা কাজী মঈনুদ্দীন আশারাফী, আল্লামা হাফেজ সোলাইমান আনসারী, পীরেত্বরিকত আল্লামা সৈয়দ মছিহুদ্দৌলা, মাওলানা হোসাইন আহমদ ফারুকী, অধ্যক্ষ মাওলানা মোছলেহ উদ্দীন মাদানী, মাওলানা ক্বারী সৈয়দ আবু তালেব মুহাম্মদ আলাউদ্দীন, মাওলানা জসিমুদ্দিন আলকাদেরী, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ, আঞ্জুমান ট্রাস্ট সদস্য আশেক রাসুল খান বাবু, যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোসাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, গাউসিয়া কমিটি চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সেক্রেটারী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, মাওলানা হাফেজ মনিরুজ্জামান আলকাদেরী, মাওলানা সৈয়দ জালাল উদ্দীন আযহারী, সহ-সভাপতি মাওলানা ইয়াছিন হোসাইন হায়দারী, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব হারুণ সওদাগর, মাওলানা জসিমুদ্দীন আবেদী, মাওলানা হাফেজ মহিউদ্দীন। মাওলানা সরওয়ার আলম আলকাদেরী ও মাওলানা নঈমুল হক নঈমীর সঞ্চালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ আবু তৈয়ব, রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব ফখরুল আনোয়ার, ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সেক্রেটারী মুহাম্মদ নাজিম উদ্দীন মুহুরী, রাজনীতিবিদ সৈয়দ মুহাম্মদ বাকের, নানুপুর ইউপি চেয়ারম্যান শফিউল আজম, বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মুহাম্মদ আইয়ুব আলী সিআইপি, রাজনীতিবিদ সাআদাত আনোয়ার সাদী, মাস্টার আবুল হোসাইন, মাওলানা মঈনুল ইসলাম শিমুল, মাওলানা আবু জাফর হেলালী, মাস্টার খোরশেদ আলম, মাস্টার নাছির উদ্দিন, মাওলানা ফজলুল বারী প্রমুখ। হুজুর কেবলা যোহরের নামাজের পূর্বে নানুপুর তাহেরিয়া সাবেরিয়া এফ. এ ইসলামিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা ময়দানে আলাদা প্যান্ডেলে মহিলাদের বাইয়াত করান। মিলাদ কিয়াম শেষে হুজুর কেবলা আল্লামা তাহের শাহ (মা:জি:আ:) দেশ ও জাতীর কল্যাণ কামনা ও মুসলিম বিশ্বের শান্তি কামনায় মুনাজাত করেন।

সাতকানিয়ায় রাহমাতুল্লিল আলামিন কনফারেন্সে পীরে বাঙ্গাল হযরত সাবির শাহ (ম.জি.আ.)
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম’র ভালবাসা ঈমানের পূর্বশর্ত
আওলাদে রসূল, পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ (মা.জি.আ.) বলেছেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম এর ভালবাসা ঈমানের পূর্বশর্ত। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন রাসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম’কে পুরো বিশ্ব জগতের রহমত হিসাবে প্রেরণ করেছেন। প্রিয় নবী না আসলে সৃষ্টি হতো না এই বিশ্বব্রহ্মান্ড। তাই উম্মতি মুহাম্মদী হিসাবে আমরা বড়ই ভাগ্যবান। আর মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লাম হলো সেই নেয়ামতের শুকরিয়া। আল্লামা সাবির শাহ্ মু.জি.আ. হালাল হারামের পার্থক্য করে মহানবীর নির্দেশিত পথ অনুসরণের মাধ্যমে সিরাতুল মুস্তাকিমের পথে জীবন পরিচালনার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। গত ২১ অক্টোবর উত্তর সাতকানিয়া জাফর আহমদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ সংলগ্ন ময়দানে রাহমাতুল্লিল আলামিন কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ সাতকানিয়া উপজেলা উদ্যোগে দক্ষিণ জেলার সার্বিক সহযোগিতায় কনফারেন্সে অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম ১৪ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল ইসলাম আমিন, রাজনীতিবিদ মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুহাম্মদ আবু সুফিয়ান, আনজুমান ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। উপস্থিত ছিলেন এডিশনাল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ শামসুদ্দিন, জয়েন্ট সেক্রেটারী আলহাজ মুহাম্মদ সিরাজুল হক, মাওলানা মুফতি আবদুল ওয়াজেদ, মাওলানা আশরাফুজ্জামান আল কাদেরী, অধ্যক্ষ মাওলানা হারুনুর রশীদ, উপাধ্যক্ষ আবুল কাশেম মুহাম্মদ ফজলুল হক, মুফতি আহমদ হোসাইন আল কাদেরী, মাওলানা জসিম উদ্দিন আজহারী, মাওলানা মনিরুজ্জামান, মাওলানা খলিলুর রহমান নিজামী, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনার, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আনোরুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল হামিদ, মহাসচিব শাহজাদ ইবনে দিদার, যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোসাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, যুগ্ম মহাসচিব- মাহাবুবুল হক খান, এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ কমর উদ্দিন সবুর, সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ছগির চৌধুরী, সহ সভাপতি হারুনুর রশিদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হাবিব উল্লাহ মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল মনসুর, মাওলানা খোরশেদ আলম রেজভী, সাতকানিয়া গাউসিয়া কমিটির সভাপতি সৈয়দ মনছুরুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসাইন চৌধুরী গাউসিয়া কমিটির দক্ষিণ জেলার আওতাধীন থানা ও পৌরসভার নেতৃবৃন্দ।

বাড়বকুণ্ডে বিশাল সুন্নি সম্মেলনে পীরে বাঙ্গাল হযরত সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)
দ্বীনের সেবা এবং সৃষ্টির কল্যাণে নিজেদের উৎসর্গ করতে হবে
পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উদ্যাপন উপলক্ষে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ সীতাকু- উপজেলা শাখা আয়োজিত বিশাল রাহমাতুল্লিল আলামিন সুন্নি সম্মেলন গত ১৯ অক্টোবর বুধবার সকাল ১০ টা হতে বাড়বকু- স্কুল এ- কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওলাদে রাসূল মুরশিদে বরহক আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ (ম.জি.আ.)। প্রধান বক্তা ছিলেন আওলাদে রসূল, পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)। বিশেষ বক্তা ছিলেন সাহেবজাদা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ কাশেম শাহ্ (ম.জি.আ)। মুরশিদে বরহক আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ (ম.জি.আ) পৃথকভাবে মহিলা ও পুরুষদের বায়াত শেষে উপস্থিত হাজার হাজার মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলেন-আমাদের দেহ ও প্রাণ অল্প সময়ের জন্য একত্রিত হয়েছে। আর অল্প সময়ের মধ্যেই নেকী অর্জন করতে হবে। এর পর কবরে হাশরে কোথাও নেকি কামানোর কোন সুযোগ থাকবে না। তাই সাবধানতা অবলম্বন করে কুপ্রবৃত্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ ম.জি.আ. বলেন বাতিল পন্থীদের চক্রান্ত থেকে নিজেকে এবং অপরকে বাঁচাতে হবে। দ্বীনের সেবা এবং সৃষ্টির কল্যাণে নিজেদের উৎসর্গ করতে হবে। গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ সীতাকু- উপজেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল আউয়ালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, জয়েন্ট সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ সিরাজুল হক, ফাইন্যান্স সেক্রেটারি আলহাজ্ব এনামুল হক বাচ্চু, কেন্দ্রীয় গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতেয়ার, আলহাজ্ব কমর উদ্দিন সবুর, ওলামা মাশায়েখদের মতে উপস্থিত ছিলেন ড. মাওলানা কামাল উদ্দিন আল আযহারী, মাওলানা আবুল হাসান মুহাম্মদ ওমাইর রেজভী, মাওলানা জসিম উদ্দিন আল আযহারী, মাওলানা রহিম আল আযহারী, মাওলানা মনিরুজ্জামান আলকাদেরী, মাওলানা জয়নুল আবেদীন আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, মাওলানা মুজিব উদ্দিন আলকাদেরী, আবু কাউসার, নাজিম উদ্দিন, খোরশেদুল আলম, মাওলানা হাসান রেজভি, মাওলানা আবুল কালাম আমিরী, স্থানীয় চেয়ারম্যান সাদাকাতুল্লাহ, চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন, চেয়ারম্যান বাহার উদ্দিন, এ.কে.এম. জাফর উল্লাহ, আলহাজ্ব মোবারক হোসেন সওদাগর, আলহাজ্ব জামাল পাশা, মাওলানা ইয়াছিন হায়দরী প্রমুখ।

দুনিয়ার শান্তি আখেরাতের মুক্তির পথ
পেতে রাসূলের আদর্শ চর্চার বিকল্প নেই
পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্
দুনিয়ার শান্তি আখিরাতের মুক্তির পথ পেতে রাসুল (দ.)’র আদর্শ চর্চার বিকল্প নেই। কুতুবুল আউলিয়া হযরত সৈয়্যদ আহমদ শাহ্ সিরিকোটি (রহ.) জামেয়া দিয়েছেন, বরহক্ব সিলসিলা দিয়েছেন, নিয়মিত এবাদত করে তাওবা করার মাধ্যমে সৎ পথে অটল থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন। গত ২২ অক্টোবর বাদে মাগরিব পশ্চিম পটিয়া পাঁচরিয়ায় মেসার্স নূর সোপ এন্ড কেমিক্যাল ইন্ডাষ্ট্রি প্রাঙ্গণে এম.এন ফ্যামিলির উদ্যোগে গাউসিয়া কমিটি হাবিলাশদ্বীপ ইউনিয়নের সহযোগিতায় দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওলাদে রাসুল, পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (মা.জি.আ.) উপরোক্ত মন্তব্য করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আঞ্জুমান ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, এডিশনাল সেক্রেটারী মুহাম্মদ শামসুদ্দিন, জয়েন্ট সেক্রেটারী মুহাম্মদ সিরাজুল হক, মাওলানা জসিম উদ্দিন আজহারী, মাওলানা আবুল কালাম বয়ানী, গাউসিয়া কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, দক্ষিণ জেলার সভাপতি আলহাজ্ব কমর উদ্দিন সবুর, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল্লাহ মাষ্টার। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিম পটিয়া শাখার সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ সগির চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ এয়াকুব আলী, নূর সোপ এন্ড ক্যামিকেল ইন্ডাষ্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ নূর সোবহান চৌধুরী, পরিচালক মুহাম্মদ নূর আলী চৌধুরী, নূর রহমান চৌধুরী, নুর রায়হান চৌধুরী প্রমূখ। এসময় হুজুর কেবলা এম.এন.গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নূর সওদাগর (রহ.) এর মাগফিরাত কামনায় মুনাজাত করেন।

আনজুমান-জামেয়ার খেদমত যাঁরা করেছেন তাঁরা দুনিয়া-আখিরাতে সম্মানিত হবেন
গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে পীরে বাঙ্গাল হযরত সাবির শাহ (মা.জি.আ)
যারা আনজুমান-জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার খেদমত আঞ্জাম দিয়েছেন, তারা দুনিয়া আখিরাতে স্মরণীয় ও সম্মানিত হবেন। হযরত সৈয়দ আহমদ শ্হা সিরিকোটি (রহ.) দ্বীনি খেদমতের উদ্দেশ্যেই আধ্যাত্মিক সংগঠন আনজুমান প্রতিষ্ঠা করেছিলেন- আর এ আনজুমান এর ব্যবস্থাপনায় জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া সহ শতাধিক দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হচ্ছে।
গত ২১ অক্টোবর বাদ মাগরিব চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন জুলুস ময়দানে আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট আয়োজিত গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে আওলাদে রাসুল (দ.) পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (মা.জি.আ) উপরোক্ত মন্তব্য করেন।
আওলাদে রাসুল (দ.) রাহনুমায়ে শরীয়ত ও ত্বরিকত আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ (মা.জি.আ)’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওলাদে রাসুল (দ.) সাহিবজাদা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ কাশেম শাহ্ (মা.জি.আ)। আধ্যাত্মিক দ্বীনি সংস্থা আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ও জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক কর্মকর্তা ও শিক্ষকম-লী যাঁরা উভয় প্রতিষ্ঠানে নিরলসভাবে খেদমত করেছেন এমন ৮ জন ব্যক্তিত্বকে গুণীজন সংবর্ধনা জ্ঞাপন করা হয়। সংবর্ধিত গুণীজন হিসেবে হুজুর কিবলার হাত থেকে ক্রেস্ট ও সনদপত্র গ্রহণ করেন জামেয়ার পরিচালনা কমিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, মরেণাত্তর সম্মাননাপ্রাপ্ত সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা জালাল উদ্দিন আলকাদেরী (রহ.)’র পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান ব্যারিস্টার আবু সাঈদ মোহাম্মদ কাসেম, শায়খুল হাদীস আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী (রহ.)’র পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান মাওলানা মুহাম্মদ হামেদ রেযা নঈমী, জামেয়া পরিচালনা কমিটির প্রাক্তন সেক্রেটারি মরহুম আলহাজ¦ আবু মুহাম্মদ তবিবুল আলমের পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান মুহাম্মদ নেওয়াজ, সাবেক সেক্রেটারি মরহুম আলহাজ¦ মোহাম্মদ জাকারিয়ার পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান অধ্যাপক মাওলানা আবুল মহসিন মুহাম্মদ ইয়াহিয়া খান, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আলহাজ¦ মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীনের পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান সুলতানুল আবেদীন, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আলহাজ¦ এম. এ ওহাব আলকাদেরীর পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন তাঁর সন্তান অধ্যাপক মাওলানা এ.এস.এম বোরহান উদ্দীন, জামেয়ার সদ্য সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরীর পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ হাসান আযহারী।
সম্মাননা প্রদানকালে পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (মা.জি.আ) সংবর্ধিত গুণীজনদের অবদান তুলে ধরে বলেন, হুজুর আল্লামা সিরিকোটি (রহ.) প্রতিষ্ঠিত এ আনজুমান ও জামেয়ার উন্নয়নকল্পে যাঁরা মূল্যবান অবদান রেখেছেন তাঁরা ইতিহাসে অমর হয়ে থাকবেন ও তাঁদের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। তাঁদের প্রত্যেকের ত্যাগ ও সেবার স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁদের নামাঙ্কিত স্মৃতিস্মারক স্থাপন করা প্রয়োজন যাতে আগামী প্রজন্ম তাঁদের স্মরণ করে এবং তাঁদের জন্য দুআ করেন। তিনি আরো বলেন, আজকের সংবর্ধিত ব্যক্তিগণ হযরত সিরিকোটি (রহ.) বাণী “কাম করো, দ্বীনকো বাঁচাও, সাচ্চা আলেম তৈয়ার করো” এ নির্দেশ ও উপদেশ বাস্তবায়নে নিজ জীবন উৎসর্গ করেছেন। হুজুর কিবলা সিরিকোটি (রহ.) প্রতিষ্ঠিত আনজুমান ট্রাস্ট পরিচালিত জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসা হতে শিক্ষা অর্জন করে হাজার হাজার আলেম প্রতিবছর বের হচ্ছেন তাঁরা দেশ-বিদেশে দ্বীনের দাওয়াতী কার্যক্রম আঞ্জাম দিচ্ছেন।
পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সাবির শাহ্ (মা.জি.আ) গুণীজন সম্মাননায় ভূষিত সকলের ত্যাগ ও নিরলস খেদমতের স্মৃতিচারণ করে বলেন, তাঁদের অক্লান্ত শ্রম ও ত্যাগের কারণেই জামেয়া-আনজুমানের সুনাম-খ্যাতি আজ সারা দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। তাঁদের ঋণ পরিশোধ করা কোন দিন সম্ভব হবে না শুধু তাঁদের অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য এ ক্ষুদ্র প্রয়াস।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ¦ মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ¦ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, আনজুমান রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল মান্নান।
আনজুমান ট্রাস্ট’র সেক্রেটারি জেনারেল তাঁর বক্তব্যে বলেন, শিক্ষাবিদ ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেছিলেন, যে দেশে গুণীর কদর নেই, সেদেশে গুণী জন্মায় না। তাই মোর্শেদে বরহক হুজুর কিবলার নির্দেশে আনজুমান কর্তৃপক্ষ এ গুণীজন সংবর্ধনার আয়োজন করেছে। এতে করে সংবর্ধনা প্রাপ্তদের উত্তরসূরিগণ ও ভবিষ্যৎ প্রজন্ম উৎসাহিত হবে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আনজুমান ট্রাস্ট’র এডিশনাল সেক্রেটারি আলহাজ¦ মোহাম্মদ সামশুদ্দিন, জয়েন্ট সেক্রেটারি আলহাজ¦ মোহাম্মদ সিরাজুল হক, এ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি আলহাজ¦ এস.এম গিয়াস উদ্দিন শাকের, ফাইন্যান্স সেক্রেটারি আলহাজ¦ এনামুল হক বাচ্চু, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি আলহাজ¦ মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম, গাউসিয়া কমিটির বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান আলহাজ¦ পেয়ার মোহাম্মদ, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আল্লামা মুহাম্মদ লিয়াকত আলী, আল্লামা মুফতি কাজী আবদুল ওয়াজেদ। মাওলানা মুহাম্মদ ইলিয়াছ আলকাদেরীর সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আনজুমান ট্রাস্ট সদস্য আলহাজ¦ লোকমান হাকিম মোহাম্মদ ইব্রাহীম, আশেক রাসুল খান বাবু, গাউসিয়া কমিটির বাংলাদেশ’র মহাসচিব শাহ্জাদ ইবনে দিদার, যুগ্ন মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, যুগ্ন মহাসচিব মাহবুবুল হক খান, গাউসিয়া কমিটি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি আলহাজ¦ কমর উদ্দিন সবুর, উত্তর জেলা সেক্রেটারি এড. জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর সভাপতি আলহাজ¦ তসকির আহমদ, সেক্রেটারি আলহাজ¦ মাওলানা আবদুল্লাহ, আলহাজ¦ মনোয়ার হোসেন মুন্না প্রমুখ। পরে হুজুর কেবলা দেশ ও জাতির উন্নতি ও কল্যাণ কামনায় মুনাজাত করেন।

মহানগর গাউসিয়া কমিটির প্রতিনিধি সম্মেলনে আল্লামা পীর সাবির শাহ্ (মা.জি.আ)
গাউসিয়া কমিটির কর্মীদের সদা মানবতার সেবায় প্রস্তুত থাকতে হবে
আওলাদে রাসুল (দ.), রাহনুমায়ে শরীয়ত ও ত্বরিকত পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (মা.জি.আ) বলেন, গাউসিয়া কমিটির কর্মীদের সদা মানবতার সেবায় প্রস্তুত থাকতে হবে। বিগত করোনাকালে যখন মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছিল, তখণ গাউসিয়া কমিটির কর্মীরা পরম মমতায় পাশে দাঁড়িয়েছিল। তিনি অর্জিত এ সুনাম ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে মানুষের যেকোন দু:সময়ে পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি ইসলামের প্রকৃত রূপরেখা আহ্লে সুন্নাত ওয়াল জামাতের মতাদর্শ প্রতিষ্ঠায় গাউসিয়া কমিটির কর্মীবাহিনীকে সুসংগঠিত হয়ে দাওয়াতে খায়র কার্যক্রম বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন।
গত ২২ অক্টোবর রাত ৮ টায় নগরীর আর.বি কনভেনশন হলে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সাংগঠনিক প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর গাউসিয়া কমিটির সভাপতি আলহাজ¦ তসকির আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন আনজুমান-এ সহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ¦ মোহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ¦ মোহাম্মদ আনােয়ার হোসেন, এডিশনাল সেক্রেটারি আলহাজ¦ মোহাম্মদ সামশুদ্দিন। চট্টগ্রাম মহানগর সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মী সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মনির উদ্দিন সোহেল। বক্তব্য রাখেন শায়খুল হাদীস আল্লামা কাজী মুঈন উদ্দীন আশরাফী, শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. নূ.ক.ম. আকবর হোসেন, মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ হাসান আযহারী, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান আলহাজ¦ পেয়ার মোহাম্মদ, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আনোয়ারুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল হামিদ, যুগ্ন মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, যুগ্ন মহাসচিব মাহবুবুল হক খান।
মহানগর ও আওতাধীন থানা নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্যে রাখেন আলহাজ¦ খাইর মোহাম্মদ, আলহাজ¦ ছালেহ আহমদ (কাউন্সিলর), ইদ্রিস মোহাম্মদ নুরুল হুদা, হাবিবুর রহমান সর্দার, আলহাজ¦ মোহাম্মদ হাসান, আলহাজ¦ আবুল বশর, আর.ইউ চৌধুরী শাহীন, মোহাম্মদ জামাল পাশা, মোহাম্মদ নুরুল আকতার, আলহাজ¦ ছাবের আহমদ, সেকান্দর মিয়া, আইয়ুব দোভাষ, দ্বীন মোহাম্মদ, মোহাম্মদ হাশেম, মাওলানা ইলিয়াছ আলকাদেরী, লায়ন মুহাম্মদ আলী নেওয়াজ, মোহাম্মদ সালামত উল্লাহ্, ইলিয়াছ মুন্সি, ইরশাদুল আলম হিরা, মাওলানা সালামত আলী, আবু নাছের মোহাম্মদ তৈয়ব আলী মোহাম্মদ হামিদ, আবু নাসের রনি, অধ্যাপক জাহিদ হোসেন, মকবুল আহমদ খান, হাজী মোহাম্মদ শাহ্জাহান প্রমুখ।
আল্লামা সাবির শাহ (মা.জি.আ) আরও বলেন, বিশ^ব্যাপী ইসলামের শত্রুরা বিভিন্নমুখি ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে তৎপর। ইসলামের নামে নানা বিভ্রান্তি ছড়িয়ে মুসলমানদের ঐক্যে ফাটল সৃষ্টির পাঁয়তারায় লিপ্ত রয়েছে। ইসলামের শত্রুরা সুকৌশলে মুসলিম তরুণ যুব সমাজকে জিহাদের নামে চরমপন্থায় উদ্বুদ্ধ করে বিগথগামী করার মাধ্যমে শান্তির ধর্ম ইসলামের উপর কলঙ্ক লেপন করছে। এ পরিস্থিতিতে সূফিবাদি শান্তিকামী সুন্নী মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধভাবে আল্লাহ্-রাসুলের প্রকৃত মতাদর্শ আঁকড়ে ধরতে হবে। মুসলিম উম্মাহ’র চরম ক্রান্তিকালে তিনি গাউসিয়া কমিটির কর্মীবাহিনীকে সুসংগঠিত ও সুশৃঙ্খলভাবে সাংগঠনিক কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান জানান।

নবনির্মিত জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া দায়েম নাজির শাহী জামে মসজিদ উদ্বোধন
চট্টগ্রাম ষোলশহরস্থ জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসা সংলগ্ন নতুন করে সংস্কারকৃত জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া দায়েম নাজির শাহী জামে মসজিদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গত ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধন করেন আওলাদে রাসুল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ (ম.জি.আ.)। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ (ম.জি.আ) পবিত্র হাদিসের উদ্ধৃতি পেশ করে বলেন, যে ব্যক্তি দুনিয়ায় একটি মসজিদ নির্মাণ করবে, তার জন্য আল্লাহ পাক জান্নাতে একটি ঘর তৈরি করবেন। এতে সম্মানিত অতিথি ছিলেন সাহেবজাদা আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ (ম.জি.আ.)। হুজুরদের ফুল দিয়ে বরণ করেন মসজিদের মুতওয়াল্লী সাবেক কমিশনার আলহাজ মুহাম্মদ কামাল উদ্দীন চৌধুরী ও মসজিদ কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। গাউসিয়া কমিটি ইউএই’র সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ আইয়ুবের অর্থায়নে দৃষ্টিনন্দন এ মসজিদ নির্মিত হয়। মসজিদে হুজুর কিবলাহদ্বয় আছর ও মাগরিবের নামাজ আদায় করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব কামরুল ইসলাম চৌধুরী, সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, এডিশনাল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ সামসুদ্দীন, জয়েন্ট সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ সিরাজুল হক, এসিষ্ট্যান্ট সেক্রেটারি আলহাজ্ব মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দীন সাকের, ফাইন্যান্স সেক্রেটারি আলহাজ্ব এনামুল হক বাচ্চু, সদস্য আলহাজ্ব মুহাম্মদ নুরুল আমিন, দায়েম নাজির জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবুল আসাদ মুহাম্মদ যোবায়ের রজভী, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার আরবী প্রভাষক মাওলানা হাফেজ আনিসুজ্জামান আলকাদেরী, গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনার, মহাসচিব আলহাজ্ব শাহজাদ ইবনে দিদার, চট্টগ্রাম মহানগর গাউসিয়া কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব তসকির আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহসহ এলাকার সমাজ ও মসজিদ কমিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ ও হযরত সাবির শাহ্ (ম.জি.আ.)’র স্বদেশ গমন
আনজুমান-এ-রহমানিয়া আহমদিয়া সুনিèয়া ট্রাস্ট’র ব্যবস্থাপনায় পবিত্র জশ্নে জুলুসে ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাহফিল নেতৃত¦দানের লক্ষ্যে আওলাদে রাসুল, রাহনুমায়ে শরীয়ত ও ত্বরিকত, মুরশিদে, মুর্শিদে বরহক, হযরতুলহাজ¦ আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ্ মাদ্দাজিল্লুহুল আলী, আল্লামা পীর সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ্ (ম. জি. আ.) এবং শাহ্জাদা হযরতুল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম (ম. জি. আ.) গত ৫ অক্টোবর ২০২২ ইং বাংলাদেশ শুভাগমন করেন। ঢাকা ও চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন স্থানে ঈদ-এ-মিলাদুনèবী (দ.)’র মাহফিল ও রাহমতুল্লিল আলামীন সুন্নী কন্ফারেন্স সমাপ্ত করে গত ২৫ অক্টোবর সন্ধা ৭-৪৫ মিনিটে হযরত শাহ্ জালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ঢাকা থেকে কাতার এয়ারওয়েজযোগে স¦দেশ গমন করেন।
হুজুর কেবলাবৃন্দকে ঢাকা মোহাম্মদপুরস্থ খানকাহ্-এ-কাদেরিয়া সৈয়্যদিয়া তৈয়্যবিয়ায় ও হযরত শাহ্ জালাল (রহঃ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিদায় সংবর্ধনা জ্ঞাপন করেন পিএইচপি ফ্যামেলীর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুফি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, আনজুমান ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, এডিশনাল জেনারেল সেক্রেটারী আলহাজ্ব মোহাম্মদ সামশুদ্দিন, জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারী আলহাজ্ব মোহাম্মদ সিরাজুল হক, এসিসটেন্ট জেনারেল সেক্রেটারী এস.এম গিয়াস উদ্দিন শাকের, ফাইনান্স সেক্রেটারী মোহাম্মদ এনামুল হক বাচ্চু, অর্গানাইজিং সেক্রেটারী মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ, মহাসচিব মুহাম্মদ সাহাজাদ ইবনে দিদার, চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি তছকির আহমদ, সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহ, অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ মনোয়ার হোসেন মুনèা, উত্তর জেলার সেক্রেটারী এড. মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার সভাপতি মোহাম্মদ কমরুদ্দিন সবুর, সম্পাদক মাস্টার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, আনজুমান ও গাউসিয়া কমিটির সদস্যবৃন্দ আনজুমান ঢাকা শাখার চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফজলুর রহমান, সেক্রেটারী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, আবদুল মালেক বুলবুলসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
হুজুর কেবলা ঢাকা মোহাম্মদপুরস্থ খানকা শরীফে ও বিমানবন্দরে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ’র শান্তি-সমৃদ্ধি ও উনèতি কামনা করে দোয়া ও মুনাজাত করেন ।

বিভিন্ন স্থানে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপন
গাউসিয়া কমিটি টাঙ্গাইল জেলা
গাউসিয়া কমিটি টাংগাইল জেলা শাখার উদ্যোগে গত ১০ রবিউল আউয়াল বাদ মাগরিব থেকে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী ও গিয়ারভী শরীফ অনুষ্ঠিত হয়। কাদেরিয়া তৈয়বিয়া তাহেরিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার সুপার মুফতি মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক জালালী। এতে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন মাদরাসা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আব্দুল হাই।
এছাড়াও টাঙ্গাইল জেলা ঈদে মিলাদুন্নবী উদযাপন কমিটির উদ্যোগে বিশাল জশনে জুলুছ গত ৯ অক্টোবর শহরের পৌর উদ্যান থেকে সকাল ১১ টায় শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে পুনরায় পৌর উদ্যানে এসে শেষ হয়। মিছিল শেষে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, আলহাজ্ব মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন এমপি (টাঙ্গাইল সদর)। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পৌরমেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ সিরাজুল হক আলমগীর, টাঙ্গাইল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ শাহজাহান আনছারী। এতে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস, উদ্বোধন করেন আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আব্দুল হাই, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ, টাঙ্গাইল জেলা শাখা। সভাপতি, বক্তব্য রাখেন, অধ্যাপক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির আল-কাদরী, আলহাজ্ব শাহ্ সুফি মোহাম্মদ সাইফুল্লাহিল কাতেয়ী, ডা. এস এস কাদরী প্রমুখ। অধ্যাপক আলী আশরাফ খান ও ডা. মোরশেদ আলম মাসুদ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন। মিলাদ ও কিয়াম শরীফ এবং মোনাজাতের মাধ্যমে জুলুস শেষ হয়।

বোয়ালখালী আহলা দরবার শরীফ
বোয়ালখালী আহলা দরবার শরীফ প্রাঙ্গণে গত ১২ রবিউল আউয়াল পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) মাহফিল উদযাপিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল পবিত্র খতমে কোরআন, কেরআত, হামদ-নাত, ইসলামী গজল, দরুদ শরীফ, জিকিরে ইলাহী, মহানবীর জীবনী আলোচনা। এতে ওলামায়ে কেরাম উপস্থিত ছিলেন। মাহফিলে বাংলাদেশ তথা বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করেন আহলা দরবার শরীফের শাহযাদা মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন।

অধ্যক্ষ আল্লামা অছিয়র রহমানের ওমান সফর বিভিন্ন মাহফিলে অংশ গ্রহণ
গাউসিয়া কমিটি ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের মিলাদুন্নবী উদযাপন
গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের ব্যবস্থাপনায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী অনুষ্ঠিত হয়। খানকায়ে কাদেরিয়া সৈয়্যদিয়া তৈয়্যবিয়া প্রাঙ্গনে গাউসিয়া কমিটি ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কালামের সভাপতিত্বে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধানবক্তা ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল-কাদেরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন গাউসিয়া কমিটি ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের উপদেষ্টা আলহাজ্ব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, আলহাজ্ব নাসির উদ্দীন চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা আবদুস সালাম আল কাদেরী, সহ সভাপতি সভাপতি আবদুল মতিন চৌধুরী, আলহাজ্ব কামাল পাশা, আলহাজ্ব গোফরান পাটোয়ারী। উপস্থিত ছিলেন গাউসিয়া কমিটি ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের জেনারেল সেক্রেটারী মুহাম্মদ সামশুল আলম, জয়েন্ট সেক্রেটারী রোকন উদ্দিন, আলহাজ্ব এম. ওয়াই কামাল বাবু, মুহাম্মদ নাসির উদ্দীন আলমদার, অর্থ সম্পাদক হাজী ইয়াকুব, হাজী ইউনুচ, জসিম উদ্দীন, নুরুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন, বাংলাদেশ স্কুল মাস্কাটের সাবেক প্রিন্সিপাল জাহাঙ্গীর আলম, গাউসিয়া কমিটি ওমান বিভিন্ন শাখার নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ সোশ্যাল ক্লাব ওমান -এর মিলাদুন্নবী মাহফিল
বাংলাদেশ সোশ্যাল ক্লাবের উদ্যোগে আজিমুশশান নূরানী মাহফিল সম্প্রতি ওমান মাস্কাটের ফাহামবল হলে বাংলাদেশ সোশ্যাল ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক এম.এন আমিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম বিভাগের সহকারী সচিব আরশাদুল হক। প্রধান আলোচক ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল কাদেরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্লাবের অর্থ সম্পাদক আলহাজ্ব মাওলানা আবদুস সালাম আল কাদেরী। উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবুল কালাম, মুহাম্মদ শামসুল আলম, জসিম উদ্দিন, শায়ের মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সহ ওমানে বসবাসরত পেশাজীবী সিনিয়র নাগরিক, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত, গাউসিয়া কমিটি ওমানের নেতৃবৃন্দ। আল্লামা অছিয়র রহমান বলেন- নবীজী আগমনের খুশী উদ্যাপনকে বুঝায় ঈদে মিলাদুন্নবী। সুতরাং অশান্তি আর বর্বরতায় ভরপুর সংঘাতময় আরবের বুকে আধারের বুক চিড়ে মহানবী শান্তি নিয়ে এসে মানবজাতিকে সত্যের, সভ্যতা ও ন্যায়ের দিক নির্দেশনা দিয়ে গোটা বিশ্বকে শান্তিতে পরিপূর্ণ করে তুলেন। তিনি মুসলিম উম্মার কল্যাণ কামনার পাশাপাশি ওমানের কিংবদন্তি সুলতান কাবুস বিন সায়িদের মাগফিরাত কামনা সহ বর্তমান সুলতানের জন্য বিশেষ দোয়া করেন।

গাউসিয়া কমিটি ওমান সুর শাখার ঈদে মিলাদুন্নবী
গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ওমান সুর শাখার ব্যবস্থাপনায় পবিত্র জশনে ঈদে মিলাদুন্নবী শাখার সভাপতি মুহাম্মদ ছৈয়দ হোসেন তালুকদার-এর সভাপতিত্বে ২১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ অছিয়র রহমান আল কাদেরী (ম.জি.আ.), বিশেষ অতিথি ছিলেন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কালাম, সিনিয়র সহ সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মতিন চৌধুরি, সহ সভাপতি আলহাজ্ব কামাল পাশা সিআইপি, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শামসুল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন আলামদার,জসীম উদ্দিন এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন প্রমুখ।
হাফেজ মাওলানা মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের সহ সভাপতি মাওলানা আবদুস ছালাম আলকাদেরী। এতে উপস্থিত ছিলেন সুর শাখার প্রধান উপদেষ্টা মুহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন তালুকদার,সহ সভাপতি এস এম ফরিদ, আমিনুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল হারুন, আকতারুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ এমরান হোসেন খোকন,যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ রিদুয়ান হোসেন তালুকদার পাপ্পু,অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ আবুল কাশেম, রিপন, সোলাইমান, হাসান উদ্দিন টুটুল, মামুনুর রশিদ, লাভলু, কাজী ফরিদ, মোরশেদুল আলম প্রমূখ।
প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়াসাল্লামের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা সর্বোত্তম শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে আমরা জাগতিক কল্যাণ ও আখিরাতের অনন্ত জীবনে পরিত্রাণ পেতে পারি। প্রিয় নবীর অনুপম শিক্ষা অনুসরণের মাধ্যমেই বিশ্বের শান্তি ও কল্যাণ নিশ্চিত।

ওমানের গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ খলিলীর সাথে অধ্যক্ষ সৈয়্যদ অছিয়র রহমানের সৌজন্য সাক্ষাৎ
চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ অছিয়র রহমান আল কাদেরী ওমান সফরকালে ওমানের গ্রান্ড মুফতি শায়খ আহমদ বিন হামদ আল খলিলির বাস ভবনে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এ সময় তাঁরা শরিয়তের বিভিন্ন বিষয়ে নিয়ে আলোচনা করেন। সাক্ষাৎ পর্বে তাঁরা মত প্রকাশ করেন যে, বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ইসলামের মূলধারা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের আকিদা ও তাসাউফের ভূমিকা অপরিসীম। আলোচনায় আরো অংশ নেন মিশর, সুদান, তানজানিয়া সহ বিভিন্ন দেশের ইসলামী স্কলারগণ এ সময় গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ খলিলি অত্যন্ত সারগর্ভ আলোচনা করেন। এ সময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ ওমান কেন্দ্রীয় পরিষদের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ মনে করেন- এ রাজকীয় অভ্যর্থনা আনজুমান, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পরিষদ, ওমান শাখা সহ ওমান প্রবাসী বাংলাদেশী জনগণের জন্যও বড় প্রাপ্তি।

শোক সংবাদ

মাওলানা আবদুর রহিম আল কাদেরীর ইন্তেকাল
চট্টগ্রাম বাকলিয়া আহমদিয়া করিমিয়া সুন্নিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ, চন্দনাইশ কাঞ্চননগর হযরত শাহ অলিউল্লাহ (রহ.) এর আওলাদ, অধ্যক্ষ মাওলানা ছৈয়দ মুহাম্মদ আবদুর রহিম আলকাদেরী (৭৮) নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৪ ছেলে ৪ মেয়ে, নাতী-নাতনী সহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে যান। মরহুমের নামাজে জানাযা ২৫ অক্টোবর মঙ্গলবার বাদে আছর কাঞ্চননগর হযরত শাহ অলিউল্লাহ (রহ.) জামে মসজিদ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় ইমামতি করেন মরহুমের বড় সাহেবজাদা সৈয়দ মুহাম্মদ সানাউল্লাহ শিবলী। মুনাজাত করেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া কামিল মাদ্রাসার প্রধান ফকিহ আল্লামা মুফতি কাজী আবদুল ওয়াজেদ আল কাদেরী। মরহুমের ইন্তেকালে আহমদিয়া করিমিয়া সুন্নিয়া ফাজিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত ও গাউসিয়া কমিটি চন্দনাইশ উপজেলা শাখার নেত্ববৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

অধ্যক্ষ এ.টি.এম. কামরুল আলম সোনার ইন্তেকাল
আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট, পরিচালনাধীন নিলফামারির চিলাহাটিস্থ তাহেরিয়া বদরুল আলম রোনা সুনিèয়া মাদ্রাসার, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম শফি উদ্দিনের ২য় পুত্র, মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, পঞ্চগড় ভাউলাগঞ্জ মহাবিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ এ.টি.এম. কামরুল আলম সোনা গত ১ সেপ্টেম্বর ইন্তেকাল করেন। মরহুমের নামাজে জানাযা পরদিন সকাল ১০টায় মাদ্রাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়। জনাযা শেষে মরহুমকে মাদ্রাসা সংলগè পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। তাঁর ইন্তেকালে আনজুমান ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ‘র চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ, মহাসচিব মুহাম্মদ সাহাজাদ ইবনে দিদার, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র যুগ্ম মহাসচিব এড. মুহাম্মদ মোছাহেব উদ্দিন বখতেয়ার গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

মুহাম্মদ জাকারিয়া
আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট প্রধান কার্যালয়ের হিসাব বিভাগের সহকারী সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মুহাম্মদ জাকারিয়া গত ২২ সেপ্টেম্বর ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স ছিল ৭৫ বছর। তিনি ২ ছেলে ১ মেয়েসহ বহু আত্মীয়স্বজন, শুভাকাক্সক্ষী রেখে যান। পরদিন বাদে জুমা জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া সংলগ্ন দায়েম নাজির জামে মসজিদে নামাজে জানাযা শেষে মাদরাসা সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।
তাঁর ইন্তেকালে আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ও তাঁর শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। এছাড়াও আনজুমান ট্রাস্ট প্রধান কার্যালয়ে কর্মরত কর্মচারি ও কর্মকর্তাগণ তাঁর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেন ও তাঁর রূহের মাগফিরাত কামনা করেন।

নূর মোহাম্মদ
আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র বক্স কালেক্টর ও গাউসিয়া কমিটি ৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ডের পশ্চিম হাজী পাড়া ইউনিট শাখার উপদেষ্টা নুর মুহাম্মদ গত ৩১ আগস্ট বুধবার ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। তিনি স্ত্রী, ৪ পুত্র, ৩ কন্যা সন্তান রেখে যান। তাঁর ইন্তেকালে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ বায়েজিদ থানা শাখার সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল হামিদ সর্দার, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সৈয়্যদ হাবিবুর রহমান সর্দার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ মুহাম্মদ আরিফুর রহমান, আলহাজ্ব আমান উল্লাহ্ আমান, আলহাজ্ব এরশাদুল আলম হীরা, ৩নং ওয়ার্ড গাউসিয়া কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মহিউদ্দিন খোকন, সহ সভাপতি মাওলানা হাফেজ মুহাম্মদ তাহের, অর্থ সম্পাদক ইয়াছিন আরাফাত, শহীদ নগর শাখার সভাপতি এম.এ. সালাম, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সাদ্দাম হোসেন, পশ্চিম হাজীপাড়া শাখার সভাপতি মুহাম্মদ ইউসুফ প্রমুখ গভীর শোক প্রকাশ করেন।

শফিউল আলম
ফটিকছড়ি হাইদছকিয়ার শফিউল আলম ৭৩ বয়সে ইন্তেকাল করেন, মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে, এক ছেলে ও আত্মীয়স্বজন গুণগ্রাহী রেখে যান। তাকে আহলা দরবার শরীফের ঈদগাহে ময়দানে জানাযা শেষে পার্শ্বস্থ কবরস্থানে দাফন করা হয়। তাঁর ইন্তেকালে বোয়ালখালী উপজেলা চেয়ারম্যান এম. নুরুল আলম, আহলা দরবার শরীফের শাহযাদা মুহাম্মদ রিয়াজ উদ্দীন, এম. সাওয়াল চৌধুরী শোকাহত পরিবার পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সৈয়দা জাহানারা বেগমের ঈসালে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে চিকিৎসা ক্যাম্প সম্পন্ন
পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী উদযাপন ও অধ্যক্ষ আল্লামা অছিয়র রহমানের সহধর্মীনি মরহুমা আলহাজ্বা সৈয়্যদা জাহানারা বেগমের ইসালে সাওয়াব ও সৈয়্যদ ওয়ালিয়ুর রহমান হাসনাইনের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ, বিনামূল্যে চক্ষু সেবা, বিনামূল্যে খৎনা মেডিসিন সহ, ফ্রি মেডিসিন প্রদান ও মা-শিশু রোগের অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা চিকিৎসা সেবা প্রদান মহীয়সী আলহাজ্বা সৈয়্যদা জাহানারা বেগম (রহ.) স্মৃতি ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় গত ২৫ অক্টোবর সকাল ১০ টা হতে শীতলঝর্ণা আ/এ, মসজিদ-এ রহমানিয়া গাউসিয়া প্রাঙ্গণে চট্টগ্রামে সম্পন্ন হয়েছে।
অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন- জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার আরবি প্রভাষক মাওলানা হাফেয সৈয়দ আজিজুর রহমান আলকাদেরী। এতে উপস্থিত ছিলেন- মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ হাসান আল-আযহারী, মাওলানা সৈয়দ আহমদ রেজা কাদেরী, গাউসিয়া কমিটি বায়েজদি মানবিক টীম লিডার সাইফুল করিম বাপ্পা, আমিনুল ইসলাম আরফাত সহ গাউসিয়া কমিটি বায়েজেিদর বিভিন্ন শাখা, ওয়ার্ড ও ইউনিটের কর্মকর্তা, সদস্যবৃন্দ। চিকিৎসা ক্যাম্পে ১৭ জনকে ফ্রি খৎনা, ৬১ জন কে চক্ষু সেবা ও ২১ জনকে ফ্রি মেডিসিন প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত ঈদে মিলাদুন্নবী মাহফিলে তকরির পেশ করে সার্দান ইউনিভার্সিটির ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মাওলানা সৈয়্যদ জালাল উদ্দিন আযহারী, মাওলানা সৈয়দ আখতার হোসাইন, মাওলানা সৈয়দ মনির উদ্দিন আলকাদেরী।

মাবিয়া খাতুন
গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলার সহ-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবু জাফর ছাদেকের মাতা আলহাজ্ব মাবিয়া খাতুন (১০৫) নগরীর এভারকেয়ার হসপিটালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি ৪ ছেলে, ১ মেয়ে, নাতি-নাতনী সহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখযান। মরহুমার ১ম নামাজে জানাযা গত ২২ অক্টোবর শনিবার দুপুর ১২.৩০টায় পীরে বাঙ্গাল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ মু.জি.আ.’র ইমামতিতে জামেয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া কামিল মাদ্রাসা ময়দানে, ২য় জানাযা ঐদিন বাদে মাগরিব পশ্চিম পটিয়া মনসা ইঞ্জিনিয়ার তারেক মঈন উদ্দিন জামে মসজিদ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। মরহুমার ইন্তেকালে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ, মহাসচিব শাহজাদ ইবনে দিদার, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সভাপতি কমর উদ্দিন সবুর, সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ মাস্টার গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

হাজী এমদাদ মিয়া
গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ, আকবরশাহ্ থানার আওতাধীন লতিফপুর ওয়ার্ডের সভাপতি মুহাম্মদ ফেরদৌস মিয়া কোম্পানীর পিতা হাজী মুহাম্মদ এমদাদ মিয়া গত ০৭ অক্টোবর ২০২২ইং রোজ শুক্রবার সকাল ০৬.৩০ ঘটিকায় নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ লতিফপুর গাউছিয়া কমিটি সাথে থেকে মাজাহাব মিল্লাতের খেদমত আনজাম দিয়েছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স ছিল ৯৮ বছর। তিনি স্ত্রী, পুত্র-সন্তান, নাতি-নাতনী, অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও শুভাকাক্ষী রেখে গেছেন। তিনি হাফেজ ক্বারী সৈয়্যদ মুহাম্মদ তৈয়্যব শাহ (রহ.)-এর মুরিদ ছিলেন। তাঁর ইন্তেকালে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ লতিফপুর ওয়ার্ড ও এর আওতাধীন ইউনিট সমূহ গভীর ভাবে শোক প্রকাশ এবং তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

Share:

Leave Your Comment