নাভীর নিচের লোম কাটার বা মুন্ডানোর সীমা কতটুকু ও মেয়াদ কতদিন।

নাভীর নিচের লোম কাটার বা মুন্ডানোর সীমা কতটুকু ও মেয়াদ কতদিন।

নাভীর নিচের লোম কাটার বা মুন্ডানোর সীমা কতটুকু ও মেয়াদ কতদিন।

মুহাম্মদ আবদুল্লাহ্ –চট্টগ্রাম।
প্রশ্ন: নাভীর নিচের লোম কাটার বা মুন্ডানোর সীমা কতটুকু ও মেয়াদ কতদিন। ভুলে বা ইচ্ছাকৃতভাবে মেয়াদ অতিবাহিত হলে করণীয় কি? ক্বোরআন-হাদীসের আলোকে জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর: নারী-পুরুষের নাভীর নিচে বগলের লোম উপড়িয়ে/ মুন্ডিয়ে পরিষ্কার করা সুন্নাতে আম্বিয়া। মুস্তাহাব হল প্রতি সপ্তাহে একবার পরিষ্কার করা। না পারলে ১৫ দিনে একবার পরিষ্কার করা। তবে চল্লিশ দিনের বেশি যেন না হয়। এ প্রসঙ্গে হাদীসে পাকের বর্ণনা নিম্নরূপ-
عن انس بن مالك قال وقت لنا رسول الله صلى الله عليه وسلم حَلْقَ العَانَةِ وتقلِيمَ الاظفار وقَصَّ الشارب ونتف الاِبطِ أربعين يومًا مرّةً- (رواه مسلم-২৫৮)
অর্থাৎ- হযরত আনাস ইবনে মালিক রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন প্রিয়নবী রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়াসাল্লাম আমাদের জন্য ৪০ দিনে কমপক্ষে একবার নাভীর নিচের লোম/চুল পরিষ্কার করার, নখ কাটার, গোঁফ ছাঁটার এবং বগলের নিচের পশম মুন্ডানোর সময়-সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছেন। [সহীহ মুসলিম শরীফ: হাদীস নম্বর ২৫৮] তাছাড়া এসব নবীদের সুন্নাতের অন্তর্ভুক্ত। তাই ৪০ দিনের বেশি পরিষ্কার না করে এভাবে রেখে দেয়া সুন্নাতের পরিপন্থী এবং মাকরূহ। [সহীহ মুসলিম শরীফ: হাদীস নম্বর ২৫৮]

Share:

Leave Your Comment