নামাযের কাতারে একে অপরের মধ্যে কতটুকু ফাঁকা রাখা দরকার

নামাযের কাতারে একে অপরের মধ্যে কতটুকু ফাঁকা রাখা দরকার

নামাযের কাতারে একে অপরের মধ্যে কতটুকু ফাঁকা রাখা দরকার

প্রশ্ন: নামাযের কাতারে একে অপরের মধ্যে কতটুকু ফাঁকা রাখা যায়। কোন কোন মুসল্লিকে দেখা যায় একেবারে গা ঘেঁষে ঘেঁষে দাঁড়ায়, আবার কেউ কেউ উভয় পা-কে বিস্তর ফাঁক করে দাঁড়ায়। যা অস্বস্তির কারণ হয়। দয়া করে সঠিক পদ্ধতি জানালে কৃতজ্ঞ হবো।
উত্তর: কোন প্রকারের ওজর বা অসুবিধা না হলে নামাযে দাঁড়ানো অবস্থায় দু’পায়ের মাঝখানে চার (৪) আঙ্গুল পরিমাণ ফাঁক রাখা মুস্তাহাব এবং দু’পা-কে সোজা রেখে পায়ের আঙ্গুলগুলোকে কিবলা মুখী করে রাখা সুন্নাত। বিশ্ববিখ্যাত ফতোয়া গ্রন্থ ‘রদ্দুল মুহতার’-এ উল্লেখ রয়েছে-
وينغتى أن يكون بينهما مقدار اربع اصابع اليد لانّه اقرب الى الخشوع هكذا روى عن ابى نصر الدبوسئ أَنَّه كان يفعله- (ص-৩৭৪– –ج– ৩)
অর্থাৎ- নামাযে দাঁড়ানো অবস্থায় দুই পায়ের মাঝখানে হাতের চার (৪) আঙ্গুল পরিমাণ ফাঁক রাখা উচিত। কেননা, নামাযের মধ্যে খুশু বা একাগ্রতার জন্য এটি (দু’পায়ের মাঝখানে ৪ আঙ্গুল পরিমাণ ফাঁক রাখা) অতি নিকটবর্তী । হযরত আবু নসর দাবুসী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি থেকেও এমন বর্ণনা পাওয়া যায়- তিনি নিজেও এরকম আমল করতেন।
সুতরাং এ কথা প্রতীয়মান হল যে, নামাযে দাঁড়ানো অবস্থায় দু’পায়ের মাঝখানে চার (৪) আঙ্গুল পরিমাণ ফাঁক রাখা উত্তম ও সুন্দর পন্থা। কেউ কেউ উভয় পায়ের মাঝখানে বিস্তর ফাঁক করে দাঁড়ায় আবার কেউ কেউ নামাযে দাঁড়ানোর সময় দু’পা যুক্ত করে দাঁড়ায় দেখতে কেমন লাগে। মূলত: এসব নামাযের খুশু-খুজু ও আদবের পরিপন্থি।
[রাদ্দুল মুহতার: ৩য় খন্ড, পৃষ্ঠা ৩৮৪, কৃত- আল্লামা আলাউদ্দীন খাচকপি হানাফী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি]

Share:

1 Comment

  1. Newaz Mahmud Nabid

    Says November 10, 2022 at 5:25 am

    আসসালামু আলাইকুম। উক্ত প্রশ্নের দ্বারা বুঝা যাচ্ছে যে, জামাতে দুজন মুসল্লি এর মাঝে কতটা ফাক থাকবে। কিন্তু প্রশ্নের সাথে উত্তর এর মিল পাচ্ছি না। দয়া করে দুজন মুসল্লি এর মাঝে কতটা ফাক থাকা উচিত তা বলবেন। ধন্যবাদ

Leave Your Comment