কবরস্থানের জায়গা স্থানান্তরিত করা যায় কিনা?

0

মুহাম্মদ ইউসুফ, সামশুল আলম, নাছের, আহমদ উল্লাহ্, শহিদুল্লাহ।
মোহরা, চান্দগাঁও, চট্টগ্রাম।
প্রশ্ন: আমরা ১ (এক) গন্ডা বিশিষ্ট একটি জায়গা কবরস্থান করার জন্য ইচ্ছা ও মনস্থ করি। যেখানে এক পার্শ্বে শুধু একটি ছোট শিশুর করব রয়েছে। কিন্তু উক্ত জায়গায় প্রশস্থ রাস্তা না থাকায় দাফনের জন্য মৃত ব্যক্তির লাশ খাঠিয়া করে আনা-নেওয়া করা বড়ই অসুবিধা। তদুপরি উক্ত জায়গায় চতুর্দিকে বেশির ভাগ ভাড়াটিয়া ঘর ভাড়ায় থাকার কারণে কবরস্থানের আদব ও পবিত্রতা বজায় রাখা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ফলে আমরা (উক্ত জায়গার মালিক পক্ষ) ছোট শিশুর কবরটি ভালো ভাবে সংরক্ষণ করে বাকি জায়গাটি পার্শ্ববর্তী আরো উত্তম ও বেশি দামি জায়গার পরিবর্তে এওয়াজ-বদল করার ইচ্ছা করেছি। যদি তা করা হয় তবে উক্ত বদলকৃত দামি জায়গায় মৃত ব্যক্তিকে দাফন করা হলে পবিত্রতাও বজায় থাকবে, মাইয়্যতের লাশ খাঠিয়া আনা-নেওয়ার বিষয়ে অনেক সুবিধা হবে। যেহেতু সেখানে আসা-যাওয়ার প্রশস্থ/রাস্তা বিদ্যমান। সুতরাং উপরোক্ত বিষয়ে ইসলামী শরীয়তের আলোকে সঠিক ফতোয়া/ফায়সালা প্রদান করত: চিরকৃতজ্ঞ করবেন।

 উত্তর: উপরোক্ত বিষয় যাচাই-বাচাই করে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক এই মর্মে ফতোয়া/ফয়সালা প্রদান করা হচ্ছে যে, মৌখিক বা লিখিত কবরস্থানের জন্য ওয়াকফকৃত জমি/জায়গা বেচা-কেনা বা হেবা করা শরিয়ত মোতাবেক অনুমতি নেই। বিশেষ প্রয়োজনে ওয়াকফকৃত জমি/জায়গা (استبدال) তথা তার চেয়ে উন্নত মানের জমির পরিবর্তে এওয়াজ-বদল করা শর্ত সাপেক্ষে ফোকাহায়ে কেরাম জায়েয বলেছেন। নি¤েœ ফিকহ- ফতোয়ার নির্ভরযোগ্য কিতাবসমূহের উদ্ধৃতি পেশ করা হল- ১. আ’লা হযরত ইমাম শাহ্ আহমদ রেযা ফাজেলে রেবলভী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি আর্দ্দুরুল মোখতার কৃত ইমাম আলাউদ্দীন খাচকপি হানাফী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি-এর ‘কিতাবুল ওয়াকফ’-এর বরাতে ফতোয়ায়ে রজভীয়া শরীফে উল্লেখ করেন- جو چيز جس غرض كے لئے وقف كى گئ دوسرى غرض كى طرف اسے پھيرنا ناجائز هے اگر چه وه غرض بهى وقف هى فائده كى هو كه شرط واقف مثل نص شارع صلى الله تعالى عليه وسلم واجب الاتباع هے- در مختار كتاب الوقف فصل شرط الوقف كنص الشارع نى وجوب العمل- (العطاياالنوية فى الفتاوى الرضويه معروف فتاوى رضويه- از امام اعلى حضرت شاه احمد رضا رحمة الله تعالى عليه- صفحة ৪৫৫/ج৬) অর্থাৎ- যে বস্তু যে উদ্দেশ্যে ওয়াকফ করা হয়েছে তা অন্য উদ্দেশ্যের দিকে নিয়ে যাওয়া/পরিবর্তন করা বৈধ হবে না যদিও উক্ত উদ্দেশ্যে ফায়দা ও কল্যাণ রয়েছে। যেহেতু ওয়াকফকারীর শর্ত হুযূর পুরনূর শারে আলায়হিস্ সালামের নস বর্ণনা স্বরূপ যার অনুসরণ ওয়াজিব। দুররে মোখতার কিতাবুল ওয়াক্ফে উল্লেখ করা হয়েছে ওয়াকফের শর্ত মোতাবেক আমল ওয়াজিব হওয়ার ক্ষেত্রে রাসূলে পাক তথা শারে আলাইহিস সালামের বর্ণনা স্বরূপ।[ফতোয়ায়ে রজভীয়া ৬ষ্ঠ খন্ড, পৃষ্ঠা নং ৪৫৫] ২. ফকিহে মিল্লাত জালাল উদ্দীন আমজাদী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি তাঁর রচিত ‘ফতোয়ায়ে ফয়জুর রাসূল’-এ একই বিবরণ উল্লেখ করেছেন।
فتاوى فيض الرسول از فقيه ملت جلال الدين امجدى رحمه الله عليه- صفحة ৩৪৭/২ح
৩. ওয়াকফের মাসআলায় ছদরুশ শরিয়া মুফতি মুহাম্মদ আমজাদ আলী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি বলেন,
بل نص العلماء قاطبة ان الوقف لا هجولا الى غير ماهو وقف عليه وان نص الواقف كنص الشارع فى وجوب الاتباع وان غرض الواقضين واجب اللحاظ قال فى الجوهرة النبرة صفت التعدى ان يستعملها فى غيرما وقفت له انتهى– فتاوى امجديه- صفحة ৫৫/ج৩)
অর্থাৎ- ওলামায়ে কেরামগণ দৃঢ়ভাবে বর্ণনা করেছেন, যে উদ্দেশ্য ওয়াকফ করা হয়েছে তা ছাড়া অন্য দিকে ওয়াকফকে পরিবর্তন করা যাবে না। যেহেতু ওয়াজিব হওয়ার ক্ষেত্রে ওয়াকফগণের উদ্দেশ্যকে লেহাজ করা ওয়াজিব পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত। ‘‘আল জাওহরাতুন্ নাইয়ারা’’ কিতাবে আছে, যে উদ্দেশ্য ওয়াকফ করা হয়েছে তার পরিবর্তে অন্য উদ্দেশ্যে ওয়াকফকৃত বস্তু ব্যবহার করা সীমালঙ্ঘন। [ফতোয়ায়ে আমজাদীয়া, ৩য় খন্ড, পৃষ্ঠা: ৫৫] অবশ্যই বিশেষ কারণ ও প্রয়োজনে ফোকাহায়ে কেরাম মৌখিক বা লিখিত ওয়াকফকৃত জায়গা এওয়াজ/বদল করা কয়েকটি শর্ত সাপেক্ষে জায়েয বলেছেন।
ক. উক্ত জায়গা যেন কম দামি জায়গার পরিবর্তে এওয়াজ/বদল করা না হয়।
খ. এওয়াজ/বদল জায়গার বিনিময়ে জায়গা/জমি হতে হবে মুদ্রা বা টাকা নয়।
গ. উভয় জায়গা এক মহল্লায় হতে হবে অথবা এমন মহল্লায় হতে হবে যা উক্ত মহল্লা/মৌজা চেয়ে উন্নত।
যেমন হযরত মুফতি জালাল উদ্দীন আমজাদী হানাফী রাহমাতুল্লাহি আলায়হি তার সংকলিত ফতোয়ায়ে ফয়জুর রাসূলে ২য় খন্ড, ৩৪৪ পৃষ্ঠায় উল্লেখ করেন- ‘ওয়াকফকৃত জায়গা/জমি বেচা-কেনা করা অবৈধ। তবে হ্যাঁ ওয়াকফকৃত জায়গায় উপকার না হলে তখন বিশেষ প্রয়োজনে এওয়াজ- বদল করা জায়েয। তার জন্য কয়েকটি শর্তের মধ্যে একটি হল- উভয় জায়গা (ওয়াকফকৃত ও বদলকৃত) একই মহল্লায় যেন অবস্থিত হয় অথবা বদলকৃত জায়গা এমন মহল্লা/মৌজায় অবস্থিত হয় যা ওয়াকফকৃত জায়গার চেয়ে উত্তম।
দুবাই (ادارة الاوقاف والشيون الاسلاميه) (ইদারাতুল আওকাফ ওয়াশ শয়ুনিল ইসলামীয়া) কর্তৃক প্রকাশিত ‘‘ফতোয়ায়ে শরঈয়া’’ ৪র্থ খন্ড ওয়াকফ অধ্যায় ৩১৭ ও ৩১৯ পৃষ্ঠায় বর্ণনা করা হয়েছে যে, বিশেষ প্রয়োজনে ও বিশেষ উপকারের নিমিত্তে ওয়াকফকৃত জায়গা একই উদ্দেশ্যে বদল করা জায়েয।
সুতরাং নির্ভরযোগ্য ফিকহ-ফতোয়া গ্রন্থে বর্ণিত উপরোক্ত উদ্ধৃতি সমূহের আলোকে স্পষ্ট হয়ে যায় যে, প্রশ্নে উল্লেখিত কবরস্থানের জন্য মৌখিক ওয়াকফকৃত ১ গন্ডা জায়গায় দাফনকৃত শিশুর কবরকে সংরক্ষণ ও হেফাজত করে বাকী জায়গা বিশেষ প্রয়োজনে (রাস্তা সংকীর্ণ হওয়ায়, মৃত ব্যক্তির লাশ দাফনের জন্য আনা-নেওয়াতে অসুবিধা হওয়ায় এবং কবরস্থানে পবিত্রতা রক্ষা করা কঠিন হওয়ায়) পার্শ্ববর্তী উত্তম অধিক দামি জায়গার বিনিময়ে একই উদ্দেশ্যে তথা কবরস্থানের এওয়াজ/বদল করা জায়েয। উপরোক্ত বিষয়ে এটাই ইসলামী শরিয়তের ফতোয়া/ফায়সালা।