সুন্নিয়তের প্রচারে আল্লামা মুফতি ওবায়দুল হক নঈমী (রহ)’র অবদান অবিস্মরণীয়

0

ইসলামি শিক্ষা, ত্বরিকত ও সুন্নিয়তের প্রচারে আল্লামা মুফতি
ওবায়দুল হক নঈমী (রহ)’র অবদান অবিস্মরণীয়-

গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ আয়োজিত স্মরণসভায় আন্জুমানের এস ভি পি মুহাম্মদ মহসিন-

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার শায়খুল হাদিস শায়খুল ইসলাম, শেরে মিল্লাত আল্লামা মুফতি ওবায়দুল হক নঈমী (রহ) জীবনের সিংহভাগ ইসলামী শিক্ষা, সিলসিলায়ে আলিয়া কাদেরিয়া ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের আক্বিদা ও দর্শনের প্রচার ও প্রসারে ব্যয় করেছেন। জীবনের শেষ নিঃশ্বাস্ত পর্যন্ত তিনি এ তিনটি মহৎ কাজ থেকে মুহুর্তের জন্য নিজেকে বিরত রাখেননি। যে কোন অন্যায়, বাতিলের হুংকার তাকে সত্য ও হক্বের অবস্থান থেকে বিচ্যুত করতে পারেনি। তিনি ছিলেন দুঃসাহসি অভিযাত্রী; খোদাদ্রোহী, নবী ও অলি বিদ্বেষীদের বিরুদ্বে তিনি ছিলেন প্রচন্ড দ্রোহ। তিনি ছিলেন আন্জুমান, জামেয়া ও গাউসিয়া কমিটির নিবেদিত খাদেম, ছিলেন ওয়াফাদার। আল্লামা নঈমী (রহ) নিজেই ছিলেন একটি প্রতিষ্ঠান যে প্রতিষ্ঠানের লাখো শিক্ষার্থী আজ দেশ, জাতি ও ইসলামের খিদমতে নিবেদিত। যাদের চোখের পানিতে শেষ বিদায় নিয়েছেন আল্লামা নঈমী। গত ১৩ জুলাই সোমবার বিকাল ৩টায় নগরীর বহদ্দারহাটস্থ আর.বি.কনভেনশন মিলনায়তনে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পরির্ষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ (কমিশনার) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণসভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে আন্জুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টে’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহম্মদ মহসিন এ কথাগুলো বলেন। স্মরণসভায় প্রধান আলোচক ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ’র মহাসচিব পীরে ত্বরীকত আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ মছিহউদ্দৌলা, বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী জনীতিবিদ রেজাউল করিম চৌধুরী, আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, এডিশনাল সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ্ব মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব মোহাম্মদ সিরাজুল হক, এসিস্ট্যান্ট জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব এস.এম. গিয়াস উদ্দিন সাকের, আনজুমান রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক আল্লামা এম.এ.মান্নান, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরী, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার প্রধান ফকিহ আল্লামা মুফতি আবদুল ওয়াজেদ, আহলে সুন্নাত সম্মেলন সংস্থা (ওএসি) বাংলাদেশ’র সভাপতি আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ সোলাইমান আনসারী, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের কো- চেয়ারম্যান, শায়খুল হাদিস আল্লামা কাযী মুহাম্মদ মুঈনউদ্দিন আশরাফী, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের স্থায়ী কমিটির সদস্য স.উ.ম. আবদুস সামাদ, আলা হযরত ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ’র সভাপতি অধ্যক্ষ বদিউল আলম রিজভী, সাদার্ন ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক ড. মাওলানা মুহাম্মদ জালাল উদ্দিন আল-আযহারী, শাহজাদা এড. সৈয়দ মোখতার আহমদ, ড. আনোয়ার হোসেন, আল্লামা নঈমীর ছাহেবজাদা মাওলানা হামেদ রেযা নঈমী, মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ।

গাউসিয়া কমিটি কেন্দ্রীয় মিডিয়া ও তথ্যকেন্দ্রের আহবায়ক অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল ও আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবদুল্লাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় স্বাগত বক্তব্য রাখের সংগঠনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব শাহজাদ ইবনে দিদার, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, গাউসিয়া কমিটি চট্টগ্রাম নগর শাখার সদস্য সচিব সাদেক হোসেন পাপ্পু, উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক এড. জাহাঙ্গির আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল্লাহ মাস্টার, মাওলানা ইয়াছির হায়দরী, আহসান হাবীর চৌধুরী হাসান, মনোয়ার হোসেন মুন্না, শাহাদাত হোসেন রুমেল, জামাল উদ্দিন সুরুজ ও মোহাম্মদ হোসাইন খোকন প্রমূখ।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে পীরে তরিকত আল্লামা মছিহদ্দৌলা সভায় বলেন, জামেয়ার শায়খুল হাদিস শেরে মিল্লাত মুফতি ওবায়দুল হক নঈমী (রহ.) ছিলেন সিরিকোট দরবারের চোখের মণি, সুন্নি মুসলমানদের প্রাণস্পন্দন। তিনি এক সংকটময় মুহুর্তে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিয়ে সুন্নি মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। তিনি ছিলেন খাটি নবীপ্রেমিক ও আশেক। দেশ বিদেশের হাজারো ওলামায়েকেরাম ও সাজ্জাদানশীলদের প্রিয় পাত্র। তার জ্ঞান-গভীর বক্তব্য সুন্নি মুসলমানদের উজ্জীবীত করেছে। অতিথিবৃন্দ বলেন, আল্লামা নঈমীর (রহ) দৃষ্টান্তে তিনি নিজেই। সুন্নিয়তের ময়দানে শেরে মিল্লাত একজন, তার বিকল্প আর কেউ নেই। তিনি তাঁর কর্মই অমর হয়ে থাকবেন। স্মরণসভার আগে দুপুর ২টা হতে খতমে কোরআন, খতমে গাউসিয় শরীফ অনুষ্ঠিত হয়, দোয়া ও মোনজাত অনুষ্টিত হয়।