জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার শায়খুল হাদীস মুফতি ওবাইদুল হক নঈমীর ইন্তেকাল-প্রধানমন্ত্রীর শোক প্রকাশ

0

জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার শায়খুল হাদীস মুফতি ওবাইদুল হক নঈমীর ইন্তেকাল-প্রধানমন্ত্রীর শোক প্রকাশ

দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমেদ্বীন, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত বাংলাদেশের চেয়ারম্যান, ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্‌রাসার শায়খুল হাদীস শেরে মিল্লাত আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। গত ৬ জুলাই সোমবার বিকাল ৫টায় ইন্তেকাল করেছেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তিনি স্ত্রী ও ৫ সন্তানসহ অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

 ওইদিন রাত ১২টায় ষোলশহরস্থ জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়া মাদরাসা মাঠে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়, পরে মাদরাসা সংলগ্ন কবরস্থানেই তাঁকে দাফন করা হয়। জামেয়া অধ্যক্ষ করোনা পরিস্থিতির কারণে লোক সমাগম এড়াতে প্রশাসনের অনুরোধে জানাজার সময় এগিয়ে আনা হয় বলে জানান।
আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
মুফতি নঈমী জামেয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া আলিয়ার শাইখুল হাদিস হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত বাংলাদেশের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার প্রতিষ্ঠাতা পৃষ্ঠপোষক ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সাবেক প্রেসিডিয়াম বোর্ডের সদস্য ছিলেন।
‘সুন্নি জনতা একজন সর্বোচ্চ অভিভাবক হারিয়েছেন’
এদিকে শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী’র ইন্তেকালে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ এবং মরহুমের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী দেশব্যাপী ইসলামের প্রচার প্রসারে ও দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন। তিনি ইসলাম ধর্মের বহুমূখী খেদমত করে গেছেন। মহান আল্লাহর কাছে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন তথ্যমন্ত্রী।
পৃথক বিবৃতিতে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, শিক্ষা উপ-মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সভাপতি সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি প্রবীণ এ আলেমেদ্বীনের ইন্তেকালে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন। তাঁরা বলেন, মুফতি নঈমীর ইন্তেকালে সুন্নী জনতা একজন সর্বোচ্চ অভিভাবককে হারিয়েছেন।
ইসলামী চিন্তাবিদ, শায়খুল হাদীস মুফতি ওবাইদুল হক নঈমীর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি হুজুরের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের গভীর সমবেদনা জানান। এছাড়া মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্মসম্পাদক ও চসিক মেয়র প্রাথী মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, প্রাক্তন মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহেছানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আবদুল ওহাব প্রমুখ গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।
মুফতি ওবায়দুল হক নঈমীর ইন্তেকালে শোকপ্রকাশ করে বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও ওলামায়ে কেরাম বলেছেন, মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী দেশব্যাপী ইসলামের মূলধারার প্রচার প্রসারে ও দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর ইন্তেকালে সুন্নি জনতা একজন সর্বোচ্চ অভিভাবককে হারিয়েছেন। সুন্নি অঙ্গনে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা অপূরণীয়।
তাঁর ইন্তেকালে পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক, শ্রদ্ধা ও সমবেদনা জানিয়েছেন, আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, অ্যাডিশনাল সেক্রেটারি মুহাম্মদ সামশুদ্দিন, জয়েন্ট সেক্রেটারি মুহাম্মদ সিরাজুল হক, এসিসটেন্ট সেক্রেটারি এস এম গিয়াস উদ্দিন সাকের, ফাইন্যান্স সেক্রেটারি মুহাম্মদ সিরাজুল হক, প্রেস এন্ড পাবলিকেশন সেক্রেটারি অধ্যাপক কাজী মুহাম্মদ সামশুর রহমান, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্‌রাসা পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, উপাধ্যক্ষ ড. মাওলানা মুহাম্মদ লিয়াকত আলী, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, মহাসচিব মুহাম্মদ শাহাজাদ ইবনে দিদার, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান আল্লামা এমএ মান্নান, মহাসচিব মাওলানা এমএ মতিন, আল্লামা সোলাইমান আনসারী, আল্লামা কাজী মুহাম্মদ মঈনুদ্দীন আশরাফী, মহাসচিব পীরে তরীকত সৈয়দ মুহাম্মদ মছিহুদ্দৌলা, অধ্যক্ষ মাওলানা স.উ.ম আবদুস সামাদ, আহলে সুন্নাতের মুখপাত্র এডভোকেট মোছাহেব উদ্দীন বখতিয়ার, আহলে সুন্নাতে নির্বাহী মহাসচিব উপাধ্যক্ষ আল্লামা আবুল কাশেম মুহাম্মদ ফজলুল হক, পীরে তরীকত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আলহাসানী মাইজভাণ্ডারী, পীরে তরীকত বদরুদ্দোজা বারী, পীরে তরীকত আবদুশ শাকুর রায়হান নকশবন্দী, আনজুমানে খোদ্দামুল মুসলেমীন ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দীন চৌধুরী, হালিশহর তৈয়বিয়া ইসলামিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আলহাজ মনজুর আলম মনজু, অধ্যক্ষ ও আলা হযরত ফাউন্ডেশনের সভাপতি মাওলানা বদিউল আলম রিজভী, ছোবহানিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মুফতি হারুনুর রশিদ, আল-আমিন বারিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ইছমাঈল নোমানী, ঢাকা কাদেরিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবদুল আলিম রেজভী, মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন শাহ্‌ছুফী সৈয়দ এমদাদুল হক মাইজভাণ্ডারী ও শাহজাদা সৈয়দ ইরফানুল হক মাইজভাণ্ডারী, ফয়জুলবারী ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল্লামা কাজী আনোয়ারুল ইসলাম খান, নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কামাল উদ্দীন আহমদ, সম্পাদক এডভোকেট মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম, জামেয়ার ছাত্র-শিক্ষক এবং পরিচালনা পর্ষদ প্রমুখ।