আহমদ শফির বক্তব্য অশালীন ও ইসলাম বিরোধী-জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা

0

চট্টগ্রাম হাটহাজারী মাদরাসার মুহতামীম মাও. আহমদ শফির বক্তব্য অশালীন ও ইসলাম বিরোধী
চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার প্রখ্যাত ওলাময়ে কেয়রামের অভিমত

চট্টগ্রাম হাটহাজারী দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মুহতামিম আহমদ শফি উক্ত মাদ্রাসার বার্ষিক মাহফিলে বলেন-‘‘আপনাদের মেয়েদেরকে স্বুল, কলেজে দেবেন না, বেশী হলে ক্লাশ ফোর-ফাইভ পর্যন্ত পড়াতে পারবেন। বেশী পড়ালে আপনার মেয়েকে টানাটানি করে অন্য পুরুষ নিয়ে যাবে’’। মাও. আহমদ শফির উক্ত বক্তব্য সোশাল মিডিয়া, ইলেক্ট্রনিক মিডয়িাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর বিভিন্ন মহলে তীব্র প্রতিবাদ উঠেছে, সাধারণ জনমণে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছে।
এ বিষয়ে দেশের প্রখ্যাত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন, মুফতিয়ে আহলে সুন্নাত আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলক্বাদেরী, উপাধ্যক্ষ ড. আল্লামা এ.টি.এম লিয়াকত আলী, শায়খুল হাদিস আল্লামা ওবাইদুল হক নঈমী, মুহাদ্দিস আল্লামা সোলাইমান আনসারী, ফকীহ আল্লামা কাজী আবদুল ওয়াজেদ, মুফাসসির আল্লামা কাজী ছালেকুর রহমান, আল্লামা সৈয়দ আবু তালেব মুহাম্মদ আলাউদ্দিন প্রমুখ এক বিবৃতিতে বলেন মেয়েদের কে নিয়ে মাওলানা আহমদ শফির বক্তব্য অশালীন ও ইসলাম বিরোধী বরং ছেলে-মেয়ে প্রত্যেকের উপর জ্ঞান ও শিক্ষা অর্জন করা অপরিহার্য, যা প্রিয় নবী সরকারে দু’আলম হুজুর পুর নূর সাল্লাল্লহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। স্বয়ং রাসুলে আকরাম সাল্লাল্লহু আলাইহে ওয়াসাল্লামার প্রিয় নবীর সম্মাণিত স্ত্রীগণ বিশেষত উম্মুল মোমেনীন হযরত আয়েশা ছিদ্দিকা রাদ্বি. আনহাকে জ্ঞান শিক্ষা দিয়েছেন। হযরত আয়েশা ছিদ্দিকা রাদ্বিয়াল্লাহু তা‘আলা আনহা নবীজির অনেক হাদিস বর্নণা করেছেন এবং জটিল সমস্যায় কুরআন-সুন্নাহর আলোকে ফয়সালা/ফতোয়া দিয়েছেন। অনেক বুজুর্গ সাহাবায়ে কেরাম ও তাবেয়ীন পুরুষগণ হযরত আয়েশা ছিদ্দিকা রাদ্বি. আনহা থেকে বিভিন্ন বিষয়ে ফতোয়া তলব করতেন এবং তিনি সমাধান দিতেন। তাই তাাঁকে ফকিহাতুল উম্মত তথা উম্মতের শ্রেষ্ঠতম ফিকাহবিদ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। মহিলাদের মধ্যে অনেক তাবেয়ী, তাবে তাবেয়ীন এবং পরবর্তী অনেক মহিলা মনিষীগণ হাদিস, তাফসীর ও ফিক্হের মধ্যে বিশাল অবদান রেখেছেন। পরিবেশ পরিস্থিতির কারণে কোন মেয়ের চরিত্র নষ্ট হলে তাকে যদি উচ্চ শিক্ষা হতে বঞ্চিত করা হয়, তাহলে মাও. আহমদ শফির রয়ান মতে ছেলে-মেয়েদের উচ্চ শিক্ষা হতে মাহরূম হতে হবে, কারণ পরিবেশ পরিস্থিতি ও কুসংস্কারের কারণে অনেক ছেলের চরিত্র ও নষ্ট হয়ে যায়। সুতরাং পরিবেশ পরিস্থিতিকে আরো বেশী সুন্দর ও সংস্কার করতে হবে, আরো সুন্দর, উত্তম, শালীন ও মর্যাদাপূর্ণ পরিবেশে ছেলেদের ন্যায় মেয়েদের উচ্চ শিক্ষা অর্জণে সুব্যবস্থা করতে হবে। এটাই ইসলামি শরীয়তের অনুশাসন। বিধায় আজে-বাজে মন্তব্য না করার ও সাধারণ জনমনে বিভ্রান্ত সৃষ্টি না করার সকলের প্রতি জোর আহবান জানানো হয়।

শেয়ার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •