আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত’শব্দের অর্থ কি ও কারা?

0

মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন/শেখ ওসমান গণি/ কে.এম.ছমি উদ্দীন

   বাংলাদেশ সুইডেন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, কাপ্তাই, রাঙ্গামাটি

প্রশ্নঃ ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতশব্দের অর্থ কি? কখন থেকে এটি শুরু বা এরূপ নামকরণ করা হয়েছে। ৭৩ দলের মধ্যে এটি একমাত্র দল যারা জান্নাতে যাবে দলিলসহ উত্তরের আশা করছি।  

উত্তরঃ ‘আহল’ শব্দের অর্থঃ পরিবার, বংশ, অনুসারী ইত্যাদি। ‘সুন্নাত’ শব্দের অর্থঃ তরীকা, পথ, পদ্ধতি, নিয়ম, চরিত্র, আদর্শ, রীতিনীতি ও স্বভাব। আর ‘আল্ জামাআত’ অর্থঃ দল। সুতরাং, ইসলামের সঠিক মূলধারা ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতর শাব্দিক ব্যাখ্যা হল ‘আহলে সুন্নাত’অর্থাৎ হুজূর পুরনূর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম’র সুন্নাত বা তরিকা অর্থাৎ আক্বীদা ও আমলের অনুসারীগণ আর ‘আল্ জামা‘আত’ দ্বারা সাহাবায়ে কেরামগণকে বুঝায়। অতএব, যেসব মুসলমান আক্বীদা ও আমলের ক্ষেত্রে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও সাহাবায়ে কেরামের অকৃত্রিম অনুসারী তাঁদেরকে ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত’বলে। প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেন-

تفترق امتی علی ثلاث و سبعین ملّۃ کلھم فی النار الا ملّۃ وّاحدۃ فقیل ماالواحدۃ قال ما انا علیہ واصحابی (الحدیث)

অর্থাৎ “আমার উম্মত তিয়াত্তর দলে বিভক্ত হয়ে পড়বে। এর একটি দল ছাড়া অন্যান্য সব দলই জাহান্নামী। সাহাবায়ে কেরাম আরজ করলেন, ওই একটি দল কোনটি? হুজূর পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উত্তরে বললেন, যার উপর আমি এবং আমার সাহাবাগণ রয়েছেন।”-(তিরমিযী ও মিশকাত)

সুতরাং, উপরোক্ত হাদীসের অংশ مَا اَنَا عَلَیْہِ وَاَصْحَابِیْ অর্থাৎ আমি রসূল এবং আমার সাহাবাগণের আক্বীদা ও আমলের উপর প্রতিষ্ঠিত দলই নাজাতপ্রাপ্ত দল। এটার অপর নাম আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত। বর্ণিত হাদীসে নাজাতপ্রাপ্ত একমাত্র দলই আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত প্রখ্যাত তাবেঈ হযরত হাসান বসরী রদ্বিয়াল্লাহু আনহুর সময় থেকে প্রচলণ বেশি শুরু হয়। উল্লেখ্য যে, আব্বাসীয়া খলিফা মুতাওয়াক্কিল এর শাসনামলে ইমাম আবুল হাসান আশাআরী রহমাতুল্লাহি আলাইহি কর্তৃক পেশকৃত আক্বাইদ প্রকাশিত হবার পর আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নামটি মুসলমানদের মধ্যে ব্যাপকভাবে প্রসার লাভ করে। ওই সময় থেকে ‘জমহুর উম্মত’জামা’আত, এবং আহলে সুন্নাত-এ জাতীয় নামের স্থলে ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত’এ পরিভাষাটি অধিকতর প্রচারিত হয়।

মোটকথা, ইসলাম বিরোধী শক্তি ইসলামের মূলধারা থেকে মুসলমানদেরকে বিচ্যুত করার মানসে ইসলামের নামেই যখন মুসলমানদের মধ্যে কোরআন-সুন্নাহ বিরোধী আক্বীদা বিশ্বাস ও ধ্যান-ধারণার অনুপ্রবেশ ঘটায়। তখন সরলপ্রাণ মুসলমানদের আক্বীদা ও ইসলামের মৌলিক বিশ্বাস রক্ষায় ইসলামের মূলধারায় পৃথক নামকরণের প্রয়োজনীয়তা একইভাবে দেখা দেয়। আর পবিত্র হাদীসের আলোকে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নামে ওই নাজাতপ্রাপ্ত দলের নামকরণ করা হয়। তাই তাবেঈনদের সোনালী যুগ থেকে বাতিল দলসমূহের মোকাবেলায় ইসলামের মূলধারার নাম ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত’ ধারাবাহিকভাবে পরিচিত ও ব্যাপক স্বীকৃতি লাভ করে আসছে।

[মিরকাত শরহে মিশকাত, কিতাবুল মিলাল ওয়ান্ নাহাল, নিবরাস ও মুকাদ্দামা ইমাম মুসলিম রহমাতুল্লাহি আলাইহি ইত্যাদি।]

[সূত্র. যুগ-জিজ্ঞাসা, পৃ.৩২-৩৩]

শেয়ার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •