প্রশ্ন: বর্তমানে আউলিয়ায়ে কেরামের ওরসে পাকে মেলা, বিভিন্ন বাদ্য-বাজনা, মান্নতকৃত গরু-মহিষকে উত্যক্ত করা, নারী-পুরুষের একসাথে আনাগোনা পরিলক্ষিত হয়। এটি কতটুকু শরীয়তসম্মত তা কোরআন-হাদীসের আলোকে জানালে উপকৃত হব।

0

নিয়মিত উত্তর দিচ্ছেন…
অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরী
অধ্যক্ষ, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া, চট্টগ্রাম।

 মুহাম্মদ আনোয়ার জাহেদ
আমান বাজার, হাটহাজারী
চট্টগ্রাম। ………….
 প্রশ্ন: বর্তমানে আউলিয়ায়ে কেরামের ওরসে পাকে মেলা, বিভিন্ন বাদ্য-বাজনা, মান্নতকৃত গরু-মহিষকে উত্যক্ত করা, নারী-পুরুষের একসাথে আনাগোনা পরিলক্ষিত হয়। এটি কতটুকু শরীয়তসম্মত তা কোরআন-হাদীসের আলোকে জানালে উপকৃত হব।

উত্তর: হক্কানী আউলিয়ায়ে কেরামের পবিত্র ওরস শরীফের নামে অশ্লীল বাদ্য-বাজনা, বেগানা যুবক-যুবতীদের মেলামেশা ও অশ্লীল নাচগান কোরআন-সুন্নাহ্ ও ইসলামী ফিকহের নির্ভরযোগ্য ফিক্হ ফতোয়া গ্রন্থের বর্ণনা অনুযায়ী সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ও বর্জনীয়। এগুলো নি:সন্দেহে রং তামাশা, অশ্লিলতা ও বেহায়াপনার নামান্তর। এসব আয়োজন যারা করে এবং তাতে যারা অংশ গ্রহণ করে ও উপভোগ করে সবাই অপরাধী; এমনকি প্রকৃত আউলিয়ায়ে কেরামের দরবারের সাথে জঘন্যতম বেয়াদবী। তাদেরকে অবশ্যই লজ্জিত হয়ে মহান আল্লাহর দরবারে খালিস নিয়তে তাওবা করতে হবে এবং এ সব ভণ্ডামী থেকে বিরত থাকতে হবে।

তবে হক্কানী আউলিয়ায়ে কেরামের বার্ষিক ওরস শরীফে ফাতেহায় খতমে কোরআন, খতমে গাউসিয়া, খতমে ছহি বোখারী, খতমে মজমুয়ায়ে সালাওয়াতে রসূল সাল্লাল্লাহু তা‘আলা আলায়হি ওয়াসাল্লাম, খতমে খাজেগান, মিলাদ কিয়াম, দরুদ-সালাম, ওয়াজ নসিহত, হামদ-নাত যিকির-আযকার ও দোয়া-মুনাজাতের মাধ্যমে আদব আর গম্ভীর পরিবেশে পবিত্র অনুষ্ঠান আয়োজন করা অবশ্যই মুস্তাহাব, কল্যাণময় এবং অনেক সাওয়াবজনক। অলির দরবারে আগত মেহমানগণের জন্য ফাতেহা ও তাবারুক দেয়ার ব্যবস্থা করা নি:সন্দেহে নেকী ও ইবাদত। ঢালাওভাবে এসব ভাল ও নেক আমলগুলোকে বিদআত বা কোরআন-সুন্নাহ্ বিরোধী বলা জঘন্যতম সীমালঙ্ঘন ও চরম অজ্ঞতা।

শেয়ার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •